1. banijjobarta22@gmail.com : admin :

নিরপেক্ষ তদন্তের স্বার্থে মোস্তফা গোলাম কুদ্দুসের পদত্যাগ, নতুন চেয়ারম্যান কাজী মনিরুজ্জামান

  • Last Update: Thursday, January 18, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক

সোনালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের চেয়ারম্যান মোস্তফা গোলাম কুদ্দুস পদত্যাগ করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) কোম্পানির জরুরি বোর্ড সভায় তিনি পদত্যাগ করেন। পরে একই সভায় কোম্পানির স্বতন্ত্র পরিচালক কাজী মনিরুজ্জামানকে সর্বসম্মতিক্রমে কোম্পানির চেয়ারম্যান মনোনীত করা হয়।

বোর্ড সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বোর্ডে উপস্থাপন করা চেয়ারম্যানের ইস্তফা চিঠি সূত্রে জানা যায়, মোস্তফা গোলাম কুদ্দুস সোনালী লাইফ ইন্স্যুরেন্সে কর্পোরেট সুশাসন নিশ্চিত করাসহ কর্তৃপক্ষের নিয়োগকৃত নিরীক্ষা কাজের সুবিধার্থে প্রতিষ্ঠানের স্বচ্ছতা-জবাবদিহিতা নিশ্চিতকল্পে এ পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।

ইস্তফা পত্রে তিনি উল্লেখ করেন, ইতিপূর্বে নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুসরণ করে কোম্পানিতে ম্যাবস এন্ড জে চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস ২০১৮, ২০১৯ এবং ২০২০ সালের অর্থবছরের বার্ষিক প্রতিবেদনের উপর বিশেষ নিরীক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করেন। নিরীক্ষা কার্যক্রম চলাকালে কোম্পানির প্রাক্তন মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তার যোগসাজশে নিরীক্ষকদের অসহযোগিতার পাশাপাশি অনিয়মগুলো কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের নিকট গোপন করেন।

২০২৩ সালের অক্টোবরে মোস্তফা গোলাম কুদ্দুস কোম্পানির চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর কোম্পানির নানা অনিয়মের বিষয় বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পেরে কোম্পানির বোর্ডকে জানিয়ে অভ্যন্তরীণ তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করেন। ওই তদন্তে কোম্পানির প্রাক্তন সিইও (সিসি) রাশেদ বিন আমানসহ তার কিছু অনুগত সহযোগী কর্মকর্তার নানা আর্থিক অনিয়ম ও অর্থ আত্মসাতের প্রমাণ পাওয়া যায়। তদন্ত কমিটির রিপোর্টের ভিত্তিতে সাবেক সিইও (সিসি) রাশেদ বিন আমানকে গত ১২ জানুয়ারি সাময়িক বরখাস্ত করে বোর্ড। পরে গত ১৪ জানুয়ারি বীমা আইন ২০১০ অনুসারে নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের দফতরে চিঠি প্রেরণ করে সোনালী লাইফের চেয়ারম্যান।

এদিকে, কোম্পানির প্রাক্তন সিইওকে বরখাস্ত করার কারণে তিনি কোম্পানির চেয়ারম্যান মোস্তফা গোলাম কুদ্দুসকে নিয়ে নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে সকল নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বরাবরে চিঠি প্রেরণ করেন। তার চিঠির প্রেক্ষিতে ও বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের প্রেক্ষিতে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠানটিতে পুনরায় অডিট ফার্ম হুদাভাসি চৌধুরী এন্ড কোংকে নিয়োগ করে। আইডিআরএ’র নিয়োগকৃত নিরীক্ষকবৃন্দের নীরিক্ষা কার্যক্রম নির্বিঘ্ন করার লক্ষ্যে এবং প্রতিষ্ঠানে কর্পোরেট সুশাসন পুনঃপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে মোস্তফা গোলাম কুদ্দুস কর্তৃপক্ষের আদেশকে সর্বোচ্চ সম্মান দিয়ে চেয়ারম্যান পদ থেকে নিজেকে দূরে রাখার সাহসী সিদ্ধান্ত নেন। যাতে আইডিআরএ‘র নিয়োজিত নিরীক্ষা প্রতিষ্ঠান হুদাভাসি চৌধুরী এন্ড কোং কোম্পানির অনিয়মের বিষয়গুলোর পুঙ্খানুপুঙ্খ বিশ্লেষণ করে স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ প্রতিবেদন প্রকাশ করতে পারেন।

দায়িত্ব থেকে সরে যাওয়ার বিষয়ে সোনালী লাইফের চেয়ারম্যান মোস্তফা গোলাম কুদ্দুস বলেন, স্বচ্ছতার সংস্কৃতি গড়ে তোলার পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানের সততা ও সুনাম অক্ষুণ্ন রাখার লক্ষ্যে আমি পদত্যাগ করেছি। নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের নীরিক্ষা কার্যক্রম নিবিঘ্ন করার পাশাপাশি তদন্ত চলাকালীন কোনো প্রভাব বিস্তার না করে নিরপেক্ষ তদন্ত নিশ্চিত করার জন্য আমি নিষ্ঠার সাথে কাজ করেছি।

এদিকে সোনালী লাইফের চেয়ারম্যান পদ থেকে মোস্তফা গোলাম কুদ্দুস স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করার পর কাজী মনিরুজ্জামানকে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেয় বোর্ড।

কাজী মনিরুজ্জামান দেশের বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক। তিনি ম্যাক্স সোয়েটার গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং রূপালী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের পরিচালক।

বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানীকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সাবেক সভাপতি তিনি।

ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে শিল্পে গুণগত পরিবর্তন আনা, সুশাসন প্রতিষ্ঠা এবং পলিসি হোল্ডারদের অধিকার রক্ষার পাশাপাশি বীমা খাতের কর্মচারীদের প্রাতিষ্ঠানিকভাবে প্রতিশ্রুতি ও উদ্দেশ্য নিয়ে কোম্পানিটি ২০১৩ সালের ১ আগস্ট যাত্রা শুরু করে। নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে দেশের জীবন বীমা খাতে উদাহরণ তৈরি করেছে সোনালী লাইফ।

সম্প্রতি সোনালী লাইফ মোট ছয়টি বিভাগে ‘কমনওয়েলথ বিজনেস এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড-২০২৩’ নামে মর্যাদাপূর্ণ এবং বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত পুরস্কার অর্জন করেছে।

এর আগে কোম্পানিটি ২০২২ সালে চারটি ভিন্ন বিভাগে ‘সাউথ এশিয়া বিজনেস এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ শিরোনামে আরেকটি পুরস্কার অর্জন করেছিল।

এছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে বিদেশি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সোনালী লাইফকে পুরস্কৃত করেছে।

Banijjobarta© Copyright 2022-2023, All Rights Reserved
Site Customized By NewsTech.Com