1. banijjobarta22@gmail.com : admin :

 ১১ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স

  • Last Update: Friday, May 6, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক

রমজান ও পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরকে কেন্দ্র করে সদ্য সমাপ্ত এপ্রিল মাসে দেশে প্রায় ২০০ কোটি ডলার অর্থাৎ ১৭ হাজার কোটি টাকার রেমিট্যান্স (প্রবাসী আয়) এসেছে। যা গত ১১ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যমতে, গত মার্চ মাসের চেয়ে এপ্রিলে ১৫ কোটি ডলারের বেশি রেমিট্যান্স এসেছে। অর্থাৎ মার্চে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সের পরিমাণ ছিল ১৮৫ কোটি ৯৭ লাখ ডলার।

২০২০-২১ অর্থবছরের পুরো সময়ে রেমিট্যান্সের উল্লম্ফন ছিল। ওই অর্থবছরে অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে ২ হাজার ৪৭৮ কোটি ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছিলেন প্রবাসীরা, যা আগের অর্থবছরের চেয়ে ৩৬ দশমিক ১০ শতাংশ বেশি। গত অর্থবছরের ১২ মাসের মধ্যে সাত মাসেই ২০০ কোটি ডলারের বেশি রেমিট্যান্স এসেছে দেশে।

ওয়ার্ল্ড মাইগ্রেশন রিপোর্ট-২২ অনুযায়ী, বাংলাদেশ বিশ্বব্যাপী অষ্টম বৃহত্তম রেমিট্যান্স গ্রহণকারী দেশ এবং ষষ্ঠ বৃহত্তম অভিবাসী প্রেরণকারী দেমের তালিকায় যুক্ত হয়েছে।

ব্যাংকের তথ্যমতে, ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ৫ বাণিজ্যিক ব্যাংকে ৩৫ কোটি ৪৯ লাখ ডলার, বেসরকারি ব্যাংকে ১৬১ কোটি ২৭ লাখ ডলার, বিদেশি ব্যাংকে ৭৩ লাখ ৫০ হাজার ডলার এবং বিশেষায়িত ব্যাংকে ৩ কোটি ৫৪ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তা মো. সিরাজুল ইসলাম বলেছেন, পরিবারের সদস্যরা আনন্দের সাথে ঈদ উদযাপন করতে পারে; সেজন্য আরও বেশি পরিমাণে টাকা পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। ফলে এপ্রিল মাসে ভালো পরিমাণে রেমিট্যান্স এসছে।

অন্যদিকে করোনা মহামারী কিছুটা শিথিল হওয়ায়া ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বৈশ্বিক অর্থনীতি। সেই সাথে প্রবাসীদেরও উপার্জন ক্ষমতা বাড়ছে। সেই সাথে দেশের অর্থনৈতিক উন্নতিও হচ্ছে। তবে এই প্রবণতা আগামী মাসেও অব্যাহত থাকবে বলে মনে করেছেন এই কর্মকর্তা।

গেল মাসে ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে সর্বোচ্চ ৪২ কোটি ৯৪ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে। দ্বিতীয় অবস্থানে ডাচ বাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে প্রবাসীরা পাঠিয়েছে ২৮ কোটি ২৮ লাখ ডলার রেমিট্যান্স। এরপর অগ্রণী ব্যাংকে ১২ কোটি ৫৭ লাখ, সোনালী ব্যাংকে ১০ কোটি ৮ লাখ এবং ব্যাংক এশিয়ার মাধ্যমে ৯ কোটি ৪১ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে।

প্রসঙ্গত, গত ১১ মাসের মধ্যে কোনো মাসেই ২০০ কোটি ডলারের বেশি রেমিট্যান্স আসার ঘটনা ঘটেনি। ২০২১ সালের মে মাসে রেমিট্যান্স এসেছিল ২১৭ কোটি ১০ লাখ ডলার। তবে গত বছরের এপ্রিলে এ বছরের প্রায় সমান অর্থাৎ ২০৬ কোটি ৭৬ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছিল।

Banijjobarta© Copyright 2020-2022, All Rights Reserved
Site Customized By NewsTech.Com